রবিবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২১, ০৬:৪৭ অপরাহ্ন

ব্রেকিং নিউজ :
হরিপুর বনগাঁও সরকার পাড়া প্রতিবন্ধী স্কুলে শিক্ষার্থীদের মাঝে কম্বল বিতরণ আনোয়ারার বঙ্গোপসাগরে মৎস্য অধিদপ্তরের অভিযান বীরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে বেসরকারি ভাবে স্বতন্ত্র প্রার্থীর জয় ‘গোলাপ মিয়া’ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হওয়ার সালুটিকর বাজারে আনন্দ মিছিল বাঘাইছড়িতে পর্যটকবাহী গাড়ী নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাহাড়ের খাদে, আহত ৮ হাটহাজারীতে তরুণ সংঘের কার্যালয় উদ্বোধন ও উপদেষ্টার স্মরণ সভা সম্পন্ন রাণীশংকৈল দোকান কর্মচারী শ্রমিক ইউনিয়নের শুভ উদ্ভোধন ও অভিষেক অনুষ্ঠান সাংবাদিক হিলালীর মৃত্যুতে রাজশাহী প্রেসক্লাবের শোক সামাজিক সংগঠন “হৃদয়ে বাঘাইছড়ি” র উদ্যোগে  বাঘাইছড়িতে পরিষ্কার-পরিছন্নতা অভিযান সামাজিক সংগঠন “রঙ্গন”এর ২০২১ সেশনের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা

মহান বিজয় দিবস

গৌরবময় বিজয় দিবস আজ। ১৯৭১ সালের এই দিনে নয় মাসের মুক্তিযুদ্ধ শেষে ঢাকার রেসকোর্স ময়দানে (বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যান) আত্মসমর্পণ করেছিল পাক হানাদার বাহিনী।

চূড়ান্ত বিজয়ের মধ্য দিয়ে অভ্যুদয় ঘটে বাঙালির স্বাধীন রাষ্ট্র বাংলাদেশের। বিজয়ের অনুভূতি সব সময়ই আনন্দের। তবে একইসঙ্গে দিনটি বেদনারও, বিশেষ করে যারা স্বজন হারিয়েছেন তাদের জন্য। অগণিত মানুষের আত্মত্যাগের ফসল আমাদের স্বাধীনতা। আমরা গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করি মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের; যেসব নারী ভয়াবহ নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন, তাদের।

এ দেশের মানুষের আর্থসামাজিক ও রাজনৈতিক অধিকার তথা স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে সফল নেতৃত্ব দেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। কোটি কোটি মানুষকে তিনি স্বাধীনতার মন্ত্রে উজ্জীবিত করে তুলেছিলেন। তার সঙ্গে ছিলেন একই লক্ষ্যে অবিচল একদল রাজনৈতিক নেতা। তাদের সবাইকেই আমরা গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করছি।

স্বাধীন বাংলাদেশের যাত্রা শুরু হয়েছিল একরাশ স্বপ্ন বুকে নিয়ে। ৪৯ বছরের এ পথপরিক্রমায় সে স্বপ্নের কতটা পূরণ হয়েছে, আজ সে হিসাব মেলাতে চাইবে সবাই। এর মধ্যে আমাদের অনেক ঘাত-প্রতিঘাত মোকাবেলা করতে হয়েছে।

তবে এসব অর্জনের বিপরীত দিকের চিত্র সুখকর নয়: রাজনৈতিক সংস্কৃতির অবনতি ঘটেছে, গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলো শক্তিশালী হওয়ার পরিবর্তে দুর্বল হয়েছে, ক্ষয়প্রাপ্ত হয়েছে নির্বাচনব্যবস্থা, প্রাণবন্ত জাতীয় সংসদ যেন এক অপূরণীয় স্বপ্নের বিষয়ে পরিণত হয়েছে। নাগরিক স্বাধীনতা, স্বাধীন মতপ্রকাশ ও সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা বহুলাংশে খর্ব হয়েছে; এমন কিছু আইনকানুন প্রণয়ন করা হয়েছে, যেগুলো একটি মুক্ত গণতান্ত্রিক সমাজ বিকাশের পক্ষে প্রতিকূল। মূলত রাজনৈতিক অঙ্গীকারের দুর্বলতার কারণে গণতন্ত্রের বিকাশ বাধাগ্রস্ত হয়েছে; এর পরিণতিতে জনপ্রশাসনের সর্বস্তরে দুর্নীতি, অনিয়ম, জবাবদিহির অভাব ক্রমেই প্রকট থেকে প্রকটতর হয়েছে। অপরাধ দমনের ক্ষেত্রে আইনের যথাযথ প্রয়োগ নিশ্চিত করা যায়নি; ফলে খুন, ধর্ষণসহ নানা ধরনের গুরুতর অপরাধের প্রতিকার থেকে ভুক্তভোগীরা বঞ্চিত হচ্ছে; একধরনের বিচারহীনতার পরিবেশ অপরাধবৃত্তি বৃদ্ধিতে সহায়ক হচ্ছে। বিশেষত, নারীর প্রতি সহিংসতা গুরুতরভাবে বেড়েছে এবং বেড়ে চলেছে।

আর এক বছর পর আমাদের স্বাধীনতা অর্জনের ৫০ বছর পূর্ণ হবে। একটি জাতির জীবনে অর্ধশত বছর নেহাত কম সময় নয়। তাই ৪৯তম বিজয় দিবসে আমরা পেছন ফিরে তাকানোর তাগিদ অনুভব করছি। যেসব স্বপ্ন–আকাঙ্ক্ষা আমাদের মুক্তিযুদ্ধে উদ্বুদ্ধ করেছিল; ৩০ লাখ শহীদের আত্মত্যাগের পেছনে যেসব স্বপ্ন ছিল; তার কতটা আমরা পূরণ করতে পেরেছি, কতটা পারিনি। যা পারিনি, তা কেন পারিনি, এই আত্মজিজ্ঞাসা আজ অতিপ্রয়োজন, প্রয়োজন এর উত্তর খুঁজে পাওয়া। সেই সঙ্গে মুক্তিযুদ্ধের শপথ ও অঙ্গীকারের কথা আবারও স্মরণ করা দরকার। একটি প্রকৃত গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ও ন্যায়ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার অসম্পূর্ণ কাজ সম্পূর্ণ করার লক্ষ্যে একাত্তরের মতো আবারও ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন।সেই সঙ্গে জাতীয় স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়গুলোয় অভিন্ন নীতি অনুসরণ অপরিহার্য। আমাদের সামনে অসীম সম্ভাবনা। একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধ থেকে শিক্ষা নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে সব সমস্যা মোকাবেলায় সচেষ্ট হলে আমাদের অগ্রগতি ঘটবে দ্রুত। বিভেদ ভুলে আমরা সে পথেই অগ্রসর হব-এই হোক বিজয় দিবসের অঙ্গীকার।

সংবাদটি শেয়ার করুনঃ

Archives

Feb0 Posts
Mar0 Posts
Apr0 Posts
May0 Posts
Jun0 Posts
Jul0 Posts
Aug0 Posts
Sep0 Posts
Oct0 Posts
Nov0 Posts
Dec0 Posts
© All rights reserved © 2020 Dailybhorerbanglanews.Com
Design & Developed BY Hostitbd.Com
You cannot copy